Press "Enter" to skip to content

রাজারহাটে প্রকৃতিতে রাসায়নিক সার ও কীটনাশকের বিরূপ প্রভাব সম্পর্কে জনগণকে সচেতন করতে আলোচনা সভা….।

Spread the love

নিজস্ব প্রতিনিধি ; কলকাতা, ২ সেপ্টেম্বর ‘২০২৩):- বিষ মুক্ত, আত্মনির্ভর সবুজ ভারত গড়ার লক্ষ্যে কৃষি বিজ্ঞান কেন্দ্র অশোকনগর-এর সহায়তায় জাতীয় পুষ্টি সপ্তাহ-র প্রথম দিনে রাজারহাটের সত্যজিৎ রায় ভবনের প্রেক্ষাগৃহে জাতীয় স্তরের এক আলোচনা সভা-র আয়োজন করেছিল ‘সবুজ সমন্বয় ফার্মার্স প্রোডিউসর কোম্পানী’ সংক্ষেপে ‘এস এস এফ পি সি’।

অনুষ্ঠানের শেষ লগ্নে সংবাদমাধ্যমের সাথে কথা বলতে গিয়ে ‘এস এস এফ পি সি’-র প্রতিষ্ঠাতা তথা অধ্যক্ষ ডঃ পরিমলকান্তি মণ্ডল বলেছেন, “এই মুহূর্তে সমগ্র দেশের সাথে তাল মিলিয়ে পশ্চিমবঙ্গেও অধিক ফলনের আশায় কৃষিকাজে সব থেকে বেশি রাসায়নিক সার ও কীটনাশক ব্যবহার করা হচ্ছে। এর ফলে প্রকৃতিতে মৃত্তিকা দূষণের পাশাপাশি মাত্রাতিরিক্ত ভাবে বেড়ে চলেছে জল দূষণ, বায়ু দূষণ সহ নানান রোগ ব্যাধির প্রকোপ।
যতক্ষণ পর্যন্ত আমাদের কৃষক ভাইবোনেরা রাসায়নিক সার ও রাসায়নিক কীটনাশকের পরিবর্তে জৈব সার ও জৈব কীটনাশক বেশি বেশি করে ব্যবহার করবেন ততদিন মৃত্তিকার উর্বরতা হ্রাসের পাশাপাশি অন্যান্য সমস্যাও উত্তরোত্তর বেড়েই চলবে।
প্রকৃতিতে রাসায়নিক সার ও কীটনাশকের বিরূপ প্রভাব সম্পর্কে জনগণকে সচেতন করতে এবং জৈব সার ও জৈব কীটনাশকের শুভ দিক ব্যাখ্যা করার উদ্দেশ্যেই আজ এই আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছিল।

জাতীয় স্তরের এই আলোচনা সভায় মুখ্য অতিথি রূপে উপস্থিত ছিলেন পশ্চিমবঙ্গ সরকারের প্রাক্তন কৃষি মন্ত্রী পূর্ণেন্দু বসু, কৃষি বিজ্ঞানী ডঃ অনুপম পাল, উত্তর ২৪ পরগনার কৃষিজ পণ্য বিপনন আধিকারিক কাশীনাথ মহান্তি, উত্তর ২৪ পরগনার উদ্যান পালন বিভাগের উপ নির্দেশক কুশধ্বজ বাগ, উত্তর ২৪ পরগনার কৃষি (প্রশাসন) বিভাগের অতিরিক্ত নির্দেশক নারায়ণ সিকদার সহ একাধিক বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ।”

More from GeneralMore posts in General »

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *