Press "Enter" to skip to content

৩১ মে অবধি বহাল  আদালত অচল থাকার নির্দেশিকা।…..

Spread the love

মোল্লা জসিমউদ্দিন: কলকাতা, ১৫মে ২০২০। গত ১৬ মার্চ থেকে বিশ্বব্যাপী মারণ ভাইরাস করোনা পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে এই রাজ্যের সমস্ত আদালত একপ্রকার বন্ধ শুরু হয়েছে। যা পর্যায়ক্রমে আগামী ৩১ শে মে অবধি বহাল রাখলো কলকাতা হাইকোর্ট। গত বুধবার হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির নির্দেশক্রমে রেজিস্ট্রার জেনারেল রাই চট্টোপাধ্যায় এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে তা জানিয়ে দেন। আজ অর্থাৎ শুক্রবার কলকাতা হাইকোর্টে ভিডিও কনফারেন্সে শুনানি রয়েছে জনস্বার্থ সহ গুরত্বপূর্ণ মামলা গুলির। এদিনই আবার জারি হতে পারে আগামী ৩১ শে মে অবধি কোন কোন তারিখে ভিডিও কনফারেন্স এর মাধ্যমে মামলার শুনানি হতে পারে সেই বিষয়ে। ইতিমধ্যেই দফায় দফায় কলকাতা হাইকোর্টের বিভিন্ন ভবন জীবাণু মুক্ত করা হয়েছে। সেইসাথে হাইকোর্ট সংলগ্ন ব্যাংকশাল – সিটি সেশন আদালত গুলিও জীবাণু মুক্ত করা হয়েছে। তবে বার এসোসিয়েশন ভবন গুলি স্যানিটাইজ করা হয়নি বলে আইনজীবীদের একাংশের অভিযোগ। সারাদেশ ব্যাপি আগামী ১৭ মে তৃতীয় দফার লকডাউন শেষ হচ্ছে। যদিও প্রধানমন্ত্রী ও মুখ্যমন্ত্রী বিভিন্ন সময়ে লকডাউনের মেয়াদ বৃদ্ধি করার ইঙ্গিত দিয়েছেন। তারই মধ্যে কলকাতা হাইকোর্ট আগামী ৩১ শে মে অবধি রাজ্যের সমস্ত জেলা /মহকুমা সর্বপরি কলকাতা হাইকোর্ট করোনার জেরে বন্ধ রাখার নির্দেশিকা জারি করে থাকে। চলতি সপ্তাহে আলিপুর আদালতে এক আইনজীবীর সন্দেহভাজন করোনায় মৃত্যুর ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য দেখা গেছে আইনজীবীদের মধ্যে। তবে পুরোপুরি বিচারপ্রক্রিয়া বন্ধ হয়নি। জনস্বার্থ সহ বহু গুরত্বপূর্ণ মামলা গুলি সপ্তাহে দুই থেকে তিন দিন যেমন পাঁচটি বেঞ্চের মাধ্যমে অনলাইন শুনানি চালু রেখেছে কলকাতা হাইকোর্ট। ঠিক তেমনি জেলা ও মহকুমাস্তরের আদালত গুলিতে প্রতিদিন ধৃতদের জামিন সংক্রান্ত মামলার এজলাসটি চালু রয়েছে। তবে মামলা গ্রহণের ক্ষেত্রে পুলিশি ভুমিকা বড় হয়ে উঠেছে বিগত দুমাসের লকডাউনে। কেননা পুলিশ কেস ( জিআর) রুজু করা গেলেও কোর্ট কেস ( সিআর) গুলি রুজুর জন্য সংশ্লিষ্ট এজলাসে সেই ব্যবস্থা শুরু হয়নি। এতে সাধারণ মানুষ তাদের অভাব অভিযোগ আদালতের কাছে ঠিকমতো পৌঁছাতে পারছেনা বলে অভিযোগ। আবার পুলিশের বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ উঠলে তা নিম্ন আদালতের কাছে এন্ট্রি থাকার ব্যবস্থা নেই। আইনজীবীদের বড় অংশ নিম্ন আদালতে কোর্ট কেস গ্রহণে কলকাতা হাইকোর্টের হস্তক্ষেপ দাবি করেছেন ।

More from GeneralMore posts in General »

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *