Press "Enter" to skip to content

১৯৩৯ খ্রিস্টাব্দে মন্বন্তরের সময় দারিদ্র্যপীড়িত পরিবারের আহার জোগাড় করার জন্য রেলস্টেশন ও প্ল্যাটফর্মে গান গেয়ে রোজগার করেন বাউল সম্রাট পূর্নদাস বাউল

বাবলু ভট্টাচার্য: ঢাকা, বাংলা ‘বাউল গান’কে নিয়ে যে ক’জন শিল্পী আন্তর্জাতিকভাবে খ্যাতি অর্জন করেছেন তাদের মধ্যে বাউল সম্রাট খ্যাত পূর্ণদাস বাউল অন্যতম। তাঁর পিতার নাম নবনীদাস বাউল। ছোটবেলা থেকেই পূর্ণদাস পিতার সাথে বাংলার বিভিন্ন স্থানে যাত্রা করেন।

১৯৩৯ খ্রিস্টাব্দে মন্বন্তরের সময় দারিদ্র্যপীড়িত পরিবারকে আহার জোগাড় করতে তিনি রেলস্টেশন ও প্ল্যাটফর্মে গান গেয়ে রোজগার করেন। এই সময় সীতারাম ওঙ্কারনাথ নামে এক সাধকের প্রেরণায় পূর্ণদাস বাংলার বাইরেও বাউল গান গাইতে বের হন। তিনি মাত্র নয় বছর বয়েসে বাউল গান গেয়ে জয়পুরে এক প্রতিযোগিতায় স্বর্ণপদক জয় করেন। কৈশোরে তিনি কলকাতা শহরে রংমহল থিয়েটার এবং বঙ্গসংস্কৃতির মেলায় গান গেয়েছিলেন।

পিতার সঙ্গে যুগ্মভাবে নির্মিত তাঁর গানের রেকর্ডিং এই সময় প্রচণ্ড জনপ্রিয় হয়। ১৯৬০ সালে পূর্ণদাস মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সান ফ্রান্সিস্কো শহরের এক গানের অনুষ্ঠানে বব ডিলানের পূর্বতন ম্যানেজার অ্যালবার্ট গ্রসম্যান কর্তৃক নিমন্ত্রিত হন। তার পর তিনি আমেরিকার বিভিন্ন জায়গায় ভ্রমণ করে বিভিন্ন সঙ্গীত অনুষ্ঠানে যোগ দেন। তিনি বব ডিলানের বাসস্থান বিয়ার্সভিলায় পরিভ্রমণ করেন, যেখানে ডিলানের সঙ্গে পূর্ণদাসের বেশ কিছু গান রেকর্ড করা হয়। পরে ফ্রান্সর নাইস শহরে মাইক জ্যাগারের ম্যানেজার পূর্ণদাসকে রোলিং স্টোন স্টুডিওতে গান রেকর্ডিং করার নিমন্ত্রণ করেন। পূর্ণদাস পরবর্তী বছরগুলিতে পৃথিবীর বহু দেশে বাউল গান গেয়ে ঘুরে বেড়িয়েছেন।

২০১৩ সালে কলা বিভাগে বিশেষ অবদানের জন্য পশ্চিম বঙ্গ রাজ্যের সুপারিশে পদ্মশ্রী পুরস্কারে সম্মানিত হন পূর্ণ দাস বাউল।

পূর্ণদাস বাউল ১৯৩৩ সালের আজকের দিনে (১৮ মার্চ) বীরভূম জেলার রামপুরহাটের সন্নিকটে একচক্কা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।

More from GeneralMore posts in General »

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.