Press "Enter" to skip to content

শেন ওয়ার্নের জীবন শুধুমাত্র ‘সাফল্যমণ্ডিত’-ই ছিল না; ছিল অসংখ্য বিতর্কও…..।

Spread the love

জন্মদিনে স্মরণঃ শে ন ও য়া র্ন

বাবলু ভট্টাচার্য : বিশ্বের তাবড় ব্যাটাররা প্যাভেলিয়নে ফিরেছেন তাঁর ঘূর্ণির মুখে পড়ে। তাঁর লেগ-ব্রেক বারেবারেই ভেঙে দিয়েছে বিপক্ষের ব্যাটিং লাইন-আপ। বিশ্বের অন্যতম সেরা দলের সদস্য হিসেবে ক্রিকেটকে দিয়েছেন অনেককিছু। তিনি শেন ওয়ার্ন।

১৫ বছরের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে ৭০৯টি টেস্ট উইকেট নিয়ে অজিদের জার্সিতে সর্বোচ্চ এবং মুত্তিয়া মুরালিধরনের পর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি তিনি।

ওয়ানডে ক্রিকেটে ২৯৩টি উইকেট নিয়েছিলেন ওয়ার্ন। অস্ট্রেলিয়ার জার্সিতে সবমিলিয়ে ৩০০-এর বেশি ম্যাচ খেলার কীর্তি ছিল তাঁর। অ্যাশেজের ইতিহাসেও সর্বোচ্চ উইকেট তাঁর দখলে। এমনকি ‘শতাব্দীর সেরা বল’-এর কীর্তি গড়েছিলেন তিনি।

১৯৯২ সালে সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডে টেস্ট অভিষেক হওয়ার পর দলের মূল অস্ত্র হয়ে উঠেছিলেন তিনি। ১৯৯৯ বিশ্বকাপজয়ী অস্ট্রেলিয়া দলের সদস্য ছিলেন এই ডানহাতি লেগ স্পিনার। এছাড়া ১৯৯৩ থেকে ২০০৩, এই ১০ বছরে পাঁচবার অ্যাশেজজয়ী অজি দলের সদস্য ছিলেন তিনি।

ক্রিকেট মাঠে তাঁর ‘ঘূর্ণিজাদু’ ছিল সবচেয়ে মনোমুগ্ধকর ‘ক্রিকেট মোমেন্ট’-এর একটি। বল নিয়ে তাঁর কারিকুরি তখনকার ব্যাটারদেরই মুগ্ধ করতো, দর্শকদের জন্য তা যে আরও আকর্ষণীয় ছিল, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

১৯৯২ থেকে ২০০৭; এই ১৫ বছরে ক্যারিয়ারে অসামান্য অর্জনের জন্য ওয়ার্নকে উইজডেনের ‘শতাব্দী সেরা পাঁচ ক্রিকেটারের একজন’ হিসেবে ঘোষণা করা হয়।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নেওয়ার পর নিজের নেতৃত্বগুণের দারুণ প্রদর্শনী দেখান ওয়ার্ন। ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল)
-এর ফ্র্যাঞ্চাইজি রাজস্থান রয়্যালসের খেলোয়াড় ও কোচ দুই ভূমিকাতেই দেখা যায় তাকে। শুধু কি তাই, টুর্নামেন্টের প্রথম আসরেই দলকে শিরোপাও জেতান তিনি।

শুধু মাঠেই নয়, মাঠের বাইরেও বর্ণিল জীবন ছিল ওয়ার্নারের। খেলোয়াড়ি জীবন ও কোচিং ছেড়ে ক্রিকেট ধারাভাষ্যে নাম লেখান তিনি। অবাক করা বিষয় হলো, নতুন ভূমিকাতেও ওয়ার্ন দারুণ সফল ছিলেন। ক্রিকেটের সবচেয়ে ‘ধারালো’ বিশ্লেষকদের একজন ছিলেন তিনি।

তবে ওয়ার্নের জীবন শুধুমাত্র ‘সাফল্যমণ্ডিত’-ই ছিল না; ছিল অসংখ্য বিতর্কও। বেশ কয়েকবার নেতিবাচক কারণে শিরোনামে উঠেছিল তাঁর নাম; বিশেষ করে ‘নারীঘটিত’ ব্যাপারে।

তবে মাঠের বাইরের জীবন এক পাশে সরিয়ে রাখলে সত্যিকার অর্থে ওয়ার্ন ছিলেন ‘চ্যাম্পিয়ন ক্রিকেটার’। ক্রিকেটবিশ্ব তাঁকে কিছুতেই ভুলতে পারবে না; তাঁর অসামান্য সব কীর্তি ভুলতেও দেবে না।

শেন ওয়ার্ন হৃদ্‌যন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে ২০২১ সালের ৪ মার্চ থাইল্যান্ডের কোহ সামুইয়ে মৃত্যু বরণ করেন। তাঁর বয়স হয়েছিল ৫২ বছর।

শেন ওয়ার্ন ১৯৬৯ সালের আজকের দিনে (১৩ সেপ্টেম্বর) অস্ট্রেলিয়ায় জন্মগ্রহণ করেন।

More from InternationalMore posts in International »
More from SportMore posts in Sport »

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *