Press "Enter" to skip to content

শিপ্রা বসুকে উচ্চাঙ্গ সঙ্গীতে মূল তালিম ও পৃষ্ঠপোষকতা দেন পণ্ডিত রবিশঙ্কর

Spread the love

——————স্মরণঃ শিপ্রা বসু—————-

বাবলু ভট্টাচার্য: ঢাকা, অসাধারণ কারুকার্যময় সুরেলা কণ্ঠের অধিকারী ছিলেন শিপ্রা বসু। পাশাপাশি হিন্দুস্থানি উচ্চাঙ্গ সঙ্গীতের একজন নামী শিল্পীও বটে। উচ্চাঙ্গ সঙ্গীতের পাশাপাশি, ঠুমরী, গজল, দাদরা’র জন্য শিপ্রা বসু সমধিক বিখ্যাত ছিলেন। তবে বাংলা রাগাশ্রয়ী গানে তাঁর অবদান সর্বাধিক। শিপ্রা বসু ১৯৪৫ সালের ৯ নভেম্বর কলকাতায় জন্মগ্রহণ করেন। কৈশোরে তাঁর সঙ্গীতে হাতেখড়ি হয় সঙ্গীতাচার্য চিন্ময় লাহিড়ী’র কাছে।

সঙ্গীতের প্রতি তীব্র অনুরাগ ও সাধনার শুরু সেই থেকে। এরপর তিনি লখনউ ঘরানায় সামিল হয়ে বিদুষী বেগম আখতারের কাছে ঠুমরী ও গজলের তালিম নেন। পরবর্তীকালে বেনারস ঘরানার ন্যায়না দেবী’র কাছেও সঙ্গীত শিক্ষা করেন।

তবে উচ্চাঙ্গ সঙ্গীতে তাঁকে মূল তালিম ও পৃষ্ঠপোষকতা দেন, পণ্ডিত রবিশঙ্কর। উচ্চাঙ্গ সঙ্গীত নিয়ে আধ্যাবসায় ও ভারতব্যাপী সঙ্গীতানুষ্ঠান নিয়ে ব্যস্ত থাকলেও, তারই ফাঁকে শিপ্রা বসু বাংলা রাগাশ্রয়ী ও বৈঠকি গানে চিরস্মরণীয় হয়ে আছেন। বিদুষী দীপালী নাগের রেখে যাওয়া শুন্যতার অনেকটাই তিনি পূরণ করতে সক্ষম হয়েছিলেন বলা চলে।

শিপ্রা বসু ২০০৮ সালের আজকের দিনে (২২ এপ্রিল ) কলকাতায় মৃত্যুবরণ করেন।

More from GeneralMore posts in General »

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *