Press "Enter" to skip to content

ভাটপাড়ার”দ্রুত”আপিল নিয়ে ডিভিশন বেঞ্চে ধাক্কা খেল তৃণমূল

Spread the love

মোল্লা জসিমউদ্দিন: কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অরিন্দম সিনহারর সিঙ্গেল বেঞ্চে ভাটপাড়া পুরসভার অনাস্থা মামলায় ধাক্কা খাওয়ার কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি দীপঙ্কর দত্তের ডিভিশন বেঞ্চে দ্রুত আপিলের জন্য পুনরায় ধাক্কা খেল এই রাজ্যের শাসক শিবির। সিঙ্গেল বেঞ্চের রায়ের প্রতিলিপি ছাড়াই আপিল এবং পাল্টা মামলার পিটিশন দাখিল করেন ভাটপাড়ার ৩ জন তৃণমূল কাউন্সিলার। এই ‘কাগজহীন’ পিটিশনে আবার দ্রুত শুনানির আর্জি রাখা হয়। তাতে কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি দীপঙ্কর দত্তের ডিভিশন বেঞ্চ জানিয়ে দেয় – ‘ কিসের ভিক্তিতে এই পিটিশন? এত তাড়াহুড়ো করে শুনানি কেন? বিচারপতি অবশ্য সিঙ্গেল বেঞ্চের রায়ের প্রতিলিপি নিয়ে সোমবার নুতন করে পিটিশন দাখিল করার পরামর্শ দিয়েছেন বলে আদালত সুত্রে প্রকাশ। সাধারণত কোন মামলার বিরুদ্ধে আপিল কিংবা পাল্টা মামলা করতে গেলে আগেকার জাজমেন্ট এর প্রতিলিপি আবশ্যিক লাগে। গত বৃহস্পতিবার বিকেলের দিকে কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অরিন্দম সিনহার এজলাসে ভাটপাড়া পুরসভার অনাস্থা বিষয়ক মামলার রায়দান ঘটে। সেই মামলা কলকাতা হাইকোর্টের নিজস্ব ওয়েবসাইটে আপলোড হতে নুন্যতম একদিন সময়সীমা লাগে। সেখানে গত বৃহস্পতিবার এজলাসে রায় দেখে শুক্রবার সকাল দশটা নাগাদই ডিভিশন বেঞ্চে আপিল পিটিশন দাখিল হয় আগেকার সিঙ্গেল বেঞ্চের রায়ের প্রতিলিপি ছাড়াই। এই পদ্ধতিগত বিষয়ের জন্য এদিন হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চে মৃদু সমালোচিত হল রাজ্যের শাসক দল। জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার ২০১৬ সালে পুরুলিয়ার ঝালদা পুরসভার মামলার রায়দান উল্লেখ করে বিচারপতি অরিন্দম সিনহা ভাটপাড়া পুরসভার অনাস্থা ভোট খারিজ করেন। উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার কলকাতার হাইকোর্টের বিচারপতি অরিন্দম সিনহার এজলাসে উত্তর ২৪ পরগনার ভাটপাড়া পুরসভার অনাস্থা বিষয়ক মামলাটি উঠেছিল। দফায় দফায় বাদী-বিবাদী পক্ষের সওয়াল-জবাব শুনে বিচারপতি অনাস্থা ভোট টি বাতিল করে দেন। সিঙ্গেল বেঞ্চের বিচারপতি অরিন্দম সিনহার পর্যবেক্ষণ ছিল – ‘গত ডিসেম্বর মাসের তৃনমূলের তিনজন কাউন্সিলারের অনাস্থা প্রস্তাব টি অবৈধ।তাই বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে দশটায় যে ভোটাভুটি হয়েছিল ভাটপাড়া পুরসভার চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে। সেটি অবৈধ ‘।গত ১৯ ডিসেম্বর পুর চেয়ারম্যান আগামী ২০ জানুয়ারি যে অনাস্থাপ্রস্তাব বৈঠক পাশ করেছেন, সেটি বৈধ বলে জানিয়ে দেয় কলকাতা হাইকোর্ট এর বিচারপতি অরিন্দম সিনহার বেঞ্চ । গত বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে দশটায় ১৯-০ ব্যবধানে ভাটপাড়া পুরসভার দখল নিয়েছিল তৃনমূল। এই অনাস্থা ভোটে বিজেপি গড়হাজির ছিল।একদিকে যেমন ভাটপাড়ায় অনাস্থা ভোট চলছিল, ঠিক তখনি কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অরিন্দম সিনহার এজলাসে এই অনাস্থা ভোট নিয়ে দুপক্ষের আইনজীবীদের সওয়াল জবাব চলেছিল। বৃহস্পতিবার বেলা শেষে হাইকোর্ট জানিয়ে দেয় – ‘তৃনমূলের তিন কাউন্সিলারের অনাস্থা প্রস্তাব টি অবৈধ। তাই চেয়ারম্যান অপসারণের ভোটাভুটি টি বেআইনী। সেইসাথে খারিজ হল অনাস্থা টি’। পুরআইন মেনে চলতে হবে বলেও আদেশনামায় উল্লেখ রয়েছে। উল্লেখ্য, গত বছরের ৮ এপ্রিল একদা পুর চেয়ারম্যান অর্জুন সিং কে ২২-১১ ব্যবধানে পরাজিত করে তৃনমূল। অর্জুন সিং এর তৃনমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করাতে এই রাজনৈতিক পরিণতি বলে ওয়াকিবহাল মহল মনে করে।লোকসভা ভোটে বাংলায় অভাবনীয় সাফল্য পেয়ে সাংসদ অর্জুন সিং তাঁর ভাইপো সৌরভ সিংহ কে পুর চেয়ারম্যান পদে বসান। এরপরে তৃনমূলের ৩ কাউন্সিলার বিজেপির পুর চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে গত ১৯ ডিসেম্বর অনাস্থা প্রস্তাব আনেন। ইতিমধ্যেই পুর চেয়ারম্যান বৈঠকের মাধ্যমে জানিয়েছেন – আগামী ২০ জানুয়ারি অনাস্থা প্রস্তাব বৈঠক আনা হবে। তড়িঘড়ি তৃনমূল বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে দশটায় ১৯-০ ব্যবধানে দখল নিয়েছিল ভাটপাড়া পুরসভা।একই দিনে বিজেপির কাউন্সিলাররা এই অনাস্থা ভোটের বিরুদ্ধে কলকাতা হাইকোর্টের দারস্থ হন । তাতে কলকাতা হাইকোর্ট এই অনাস্থা মামলায় জানিয়ে দেয় ভাটপাড়ার অনাস্থা ভোট বে আইনী। ঠিক এইরকম পরিস্থিতিতে কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি দীপঙ্কর দত্তের ডিভিশন বেঞ্চে শুক্রবার সকাল দশটা নাগাদ সিঙ্গেল বেঞ্চের রায়ের প্রতিলিপি ছাড়াই আপিল এবং পাল্টা মামলার পিটিশন দাখিল হয়। সেখানে ডিভিশন বেঞ্চ জানিয়ে দেয় -‘ কিসের ভিক্তিতে জরুরি শুনানি? রায়ের প্রতিলিপি ছাড়া এই আবেদন গ্রাহ্য নয় ‘। সেইসাথে আগামী সোমবার সিঙ্গেল বেঞ্চের রায়ের প্রতিলিপি নিয়ে পিটিশন দাখিল করার পরামর্শ দেয় কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ। যেভাবে দ্রুত শুনানির আর্জি রাখা হয়েছিল, তা নিয়েও মৃদু সমালোচিত হয় তৃনমূল শিবির।

More from GeneralMore posts in General »

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *