Press "Enter" to skip to content

বিশ্বব্যাপী লকডাউনে ক্ষুদ্র থেকে বৃহৎ শিল্প সকলেরই এক হাল।…..

Spread the love

রাজর্ষি মজুমদার: কর্ণধার, দেব সাহিত্য কুটির প্রাইভেট লিমিটেড। কলকাতা, ৯মে ২০২০। এই বিশ্বব্যাপী লক ডাউনে প্রতিটি মানুষই যে কি কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে সেটা সাধারণ মানুষ হৃদয় দিয়ে উপলব্ধি করতে পারছে। টাটা, বিড়লা, গোয়েনকা, আম্বানি, আদানি সকলেরই একই হাল। এই দেশে লকডাউন শুরু হওয়া থেকে তাদের কারো ফ্যাক্টরি তে কোনো রকম উৎপাদন শুরু করা সম্ভবপর হয়নি। কারখানার যন্ত্রপাতি গুলো নিশ্চুপ হয়ে দীর্ঘশ্বাস ফেলছে। এই পরিস্থিতিতে তাদের ব্যবসায় চূড়ান্ত মন্দা দেখা দিয়েছে এবং শেয়ার বাজারেও তাদের শেয়ারের দাম তলানিতে ঠেকে গিয়েছে। যেই ভাবে এই মুহূর্তে কুটির শিল্প গুলো মুখ থুবড়ে পড়েছে, আদৌ আবার ঘুরে দাঁড়াতে পারবে কিনা সেই নিয়ে কুটিরশিল্পের মালিকদের রাতের ঘুম চলে গেছে। অনেকে আবার মানসিক ভাবে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। এই মহামারীর পরিস্থিতিতে আমাদের সকলের মানসিকতার পরিবর্তন করতে হবে, সকলের জন্য সকলকে ভাবতেই হবে না হলে এই বিপর্যয় কাটিয়ে ওঠা কোনোদিনই সম্ভবপর হবেনা। আজকের দিনে এই মূলমন্ত্র সকলের কাছে পৌঁছে দেওয়া অত্যন্ত জরুরি বলে আমি মনে করি। আমরা সকলেই একই নৌকার সহযাত্রী। কোনো প্রকার ভয় না পেয়ে কিভাবে এই কঠিন সময়টাকে ভালো ভাবে সদ্ব্যবহার করে যাতে আবার ঘুরে দাঁড়ানো সম্ভবপর হয় সেই চেষ্টাই সকলকে করতে হবে। আমাদের জীবনে বারংবার সমস্যা আসতেই পারে এমন কি প্রাকৃতিক দুর্যোগও আসতে পারে, আমাদের সকলকে মাথা ঠান্ডা রেখে গুজবে কান না দিয়ে এই অসম লড়াইয়ের সাথে মোকাবিলা করতে হবে। এই মুহূর্তে আমাদের সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা খুবই জরুরি, আগামীদিনে আমাদের সমস্ত পরীক্ষায় সফল হতে হবে এই মানসিকতা নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। আমাদের নতুন নতুন প্রোডাক্টিভ ভাবনাকে সঠিক রূপ দেওয়ার চেষ্টা করতে হবে। কোন সংস্থা বা ব্যক্তিগত উদ্যোগের সাহায্যের ভরসা না করে আগামীদিনে কি হবে এই আশংকায় না ভুগে, অন্যের উপর নির্ভরশীল না হয়ে, হাহাকার না করে যে যার মতো পরিকল্পনা করে তাকে বাস্তবে রূপ দেওয়ার চেষ্টা তাকেই করতে হবে। কথায় আছে মানুষ নিজের ভাগ্য নিজেই তৈরি করে, এটাও যেমন সত্যি ঠিক তেমনই কেবলমাত্র ঘরে বসে হা-হুতাশ করলে ভাগ্যদেবীও ছেড়ে চলে যায় এটাও ততটাই সত্যি। শ্রমিক মালিক সকলকেই কর্তব্যে অবিচল থেকে ফলের আশা না করে আগামীদিনে সফলতার পথে এগিয়ে যেতে হবে।

More from GeneralMore posts in General »

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *