Press "Enter" to skip to content

বিশ্বকবির ১৫৯তম জন্মদিন উপলক্ষে সুদূর ইজরায়েলের একটি রাস্তার নামকরণ করা হল তাঁর নামে।……….

—রবীন্দ্রজয়ন্তীতে বিশেষ সম্মানঃ ইজরায়েলে কবিগুরুর নামে রাস্তা—-

বাবলু ভট্টাচার্য: ঢাকা, পঁচিশে বৈশাখ বাঙালির ‘প্রাণের ঠাকুর’-এর জন্মদিন। বাঙালিকে তো বটেই, তাঁর লেখা প্রভাবিত করেছে সারা পৃথিবীর অসংখ্য মানুষকে। ভারতের বাইরেও যে তিনি আজও পূজনীয়, তা প্রমাণিত হল আরও একবার। বিশ্বকবির ১৫৯তম জন্মদিন উপলক্ষে সুদূর ইজরায়েলের একটি রাস্তার নামকরণ করা হল তাঁর নামে। শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করল ইজরায়েল সরকার। পৃথিবীর নানান দেশে রয়েছে রবীন্দ্রনাথের নামে সরণী। আর্জেন্টিনা, বাংলাদেশ, জাপান, ইংল্যান্ডের পর সেই তালিকাতেই যুক্ত হল ইজরায়েলের নাম। এদিন বিশ্ববরেণ্য স্রষ্টার জন্মজয়ন্তী উদযাপনের সময়, ইজরায়েল দূতাবাস থেকে ঘোষণা করা হয় এই সংবাদ। ইজরায়েল সরকারের তরফে ট্যুইট করা হয় ওই সরণীর ছবিও। ইজরায়েলের রাজধানী তেল আভিভের ওই রাস্তা এবার থেকে পরিচিত হবে ‘রেহভ টেগর’ নামে। রাজধানীর ওই অঞ্চলে বেশ বড় সংখ্যক ছাত্র-ছাত্রীদের বসবাস। অনেকেই পড়াশোনার কারণে ভাড়া থাকেন ওই জায়গায়। বিশ্বকবির ব্যাপারে তাদের উদ্বুদ্ধ করতেই এই উদ্যোগ সরকারের। মানবজাতির প্রতি তাঁর অবদান যে অনস্বীকার্য, ট্যুইটারে লেখেন ইজরায়েল মন্ত্রক। পাশাপাশি এদিন রবীন্দ্রনাথের প্রতি সম্মানজ্ঞাপন করে নোবেল কমিটিও।

বিশ্বের দরবারে মাতৃভাষা বাংলাকে উপস্থাপিত করেছিলেন রবীন্দ্রনাথ। অনুপ্রাণিত করেছিলেন হাজার হাজার মানুষকে। জন্মের সার্ধশতবর্ষ পরেও তাঁর সৃষ্টির টানেই কলকাতায় ছুটে আসেন পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তের অনেকে। এত বছর পরেও তাঁর রচনা আন্দোলিত করে তোলে মানুষকে। রবীন্দ্রনাথ একটা বিশেষ আবেগ হয়ে রয়ে গেছেন বিশ্ববাসীর মনে। প্রজন্ম পাল্টেছে। তবু বয়স বাড়েনি ভানুসিংহের।

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.