Press "Enter" to skip to content

” পেন ইজ মাইটিয়ার দ্যান সোর্ড ” ইতিহাসে – কলম………

Spread the love

সুব্রত ঘোষ: কলকাতা, ২২মে, ২০২০। আদিম যুগ থেকে মানুষের সভ্যতার উণ্মেষের আত্মপ্রকাশে কলমের ভূমিকা চিরন্তন। আদিম যুগের মানুষের পর্যবেক্ষণ এবং মনের ভাবের বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে গুহাচিত্রের মাধ্যমে। গাছের রস এবং বিভিন্ন প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে রঙ তৈরী করে গাছের ডাল দিয়ে তারা ছবি আঁকত। আজকে সেই ছবিগুলি থেকে সেই সময়ের অনেক অজানা তথ্য জানা গেছে । মানুষের উদ্ভাবনী শক্তির বিকাশের পরিচয়ের এক শক্তিশালী মাধ্যম কলম। খ্রিস্টপূর্ব ২০০০ সালে, প্রায় ৫ হাজার বছর আগে, মিশরীয় সভ্যতা, কলম আবিষ্কার করে। প্রাচীন মিশরীয়রা নলখাগড়া, শর বা বেণু বাঁশের কঞ্চি অথবা ফাঁপা খণ্ড কলমের মত করে কেটে সূঁচালো করে কালির মধ্যে চুবিয়ে কলম হিসেবে ব্যবহার করত। ৫ শতক থেকে কলমের উপাদান হিসেবে পাখির পালকের ব্যবহার শুরু হয়। ল্যাটিন ভাষায় পালকের অর্থ ( penna )।

এই শব্দটি থেকেই ইংরেজি pen শব্দটি এসেছে । রাজহাঁসের পালক ছিল সে যুগে কলম তৈরীর প্রধান উপকরণ। তবে সম্ভবত মিশরীয়রাই একটা কাঠির ডগায় তামার নিবের মত কিছু একটা পরিয়ে লেখা শুরু করে । উন্নততর কলমের প্রচলন হয় প্রায় চার হাজার বছর আগে গ্রিসে।

এদের কলম তৈরী হত হাতির দাঁত বা ঐ জাতীয় কিছু দিয়ে। ১৮৮৪ সালে ইংল্যান্ডে ওয়াটারম্যান প্রথম ফাউন্টেন পেন আবিষ্কার করেন । তবে এর নিব তৈরী করতে ব্যবহার করা হত ১৪ ক্যারেট সোনা, আর ডগা তৈরী করতে লাগত ইরিডিয়াম । শিক্ষার প্রসারের সাথে সাথে প্রথম আধুনিক বল পয়েন্ট পেনের আবিষ্কার হয় ১৮৮৮ সালের ৩০ শে অক্টোবর । জন জে লাউড নামে একজন হাঙ্গেরিয়ান সংবাদমাধ্যমের সম্পাদক, তার রসায়নবিদ ভাইয়ের সহযোগিতায় সেটি প্রস্তুত করে সর্বপ্রথম ব্যবহার করেন ।

বিভিন্ন বিবর্তনের মধ্য দিয়ে ১৯৩৫ সালে হাঙ্গেরির জর্জ ও লেডিসলাস বিরো নামের দুই ভাই, সত্যিকার অর্থে একটি উন্নতমানের বল পয়েন্ট কলমের আবিষ্কার করেন । তাঁদের প্রচেষ্টায় ১৯৪৩ সালে আর্জেন্টিনায় বিশ্বের প্রথম বল পয়েন্ট কলমের কারখানা প্রতিষ্ঠিত হয় এবং শুরু হয় কলমের শিল্পায়ন। বিশ্বযুদ্ধের পর শিকাগোর অধিবাসী, পেশায় নাবিক, মিল্টন রেনল্ডসের হাত ধরে বিরো ভাইদের এই কলমের আমেরিকায় অনুপ্রবেশ ঘটে। আমেরিকাতেই, বিরো ভাইদের বল পয়েন্ট কলমের অবশিষ্ট ত্রুটি গুলি দূরীভূত হয়ে, ১৯৪৫ সালে সার্বিক ত্রুটিমুক্ত কলম বাজারে আসে। প্রযুক্তিগত উন্নতির সাথে সাথে আজ কলম হয়ে উঠেছে সাশ্রয়ী মূলক, গ্রাহক বান্ধব এবং সহজলভ্য । কলমের বিবর্তনের ধারা আজও বহমান ।

কিন্তু ১৭৮০ সালে আবিষ্কৃত ফাউন্টেন পেন আজও সমাজে ঐতিহ্যের মূর্ত প্রতীক হিসেবে বিদ্যমান । ভাবতে অবাক লাগে, আজও ‘অরোরা দায়ামান্তে’ ফাউন্টেন পেনের মূল্য ১৪ লক্ষ ৪৭ হাজার ডলার । দ্বিতীয় স্থানে আছে ‘ম্যঁ ব্ল্যাঁ’, যার মূল্য ৭ লক্ষ ৩০হাজার ডলার।

More from GeneralMore posts in General »

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *