Press "Enter" to skip to content

চারদিনব্যাপী চতুর্থ বার্ষিক কনফারেন্স অফ সোসাইটি অফ থেরাপিউটিক নিউরো ইন্টারভেনশন চলছে কলকাতার হায়াত রিজেন্সি হোটেলে…..

Spread the love

সুজিৎ চট্টোপাধ্যায়: কলকাতা, ৯ই ফেব্রুয়ারি ২০২০। ৬ই থেকে ৯ই ফেব্রুয়ারি পূর্ব কলকাতার সাত তারা হায়াত রিজেন্সি হোটেলে চারদিনব্যাপী চতুর্থ বার্ষিক কনফারেন্স অফ সোসাইটি অফ থেরাপিউটিক নিউরো ইন্টারভেনশন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এবং অন্য সার্ক গোষ্ঠীভুক্ত দেশ , ইউ এস এ, কানাডা, ইউ কে, ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি, কোরিয়া, ও জাপান, থেকে স্নায়ু বিশেষজ্ঞরা এসেছেন।

পারস্পরিক অভিজ্ঞতা বিনিময় এর পাশাপাশি আধুনিক যন্ত্রের ব্যবহার সম্পর্কে আলোচনা চলছে।
স্নায়ু চিকিৎসার ক্ষেত্রে পশ্চিম বাংলা পিছিয়ে আছে এমন একটা ধারণা কাটিয়ে জনমনে নতুন করে এক আস্থা ফিরছে। জটিল জীবন যাত্রা থেকে অবসাদ, অস্বাস্থ্যকর খাদ্য গ্রহন, পরিবেশ দূষণ সর্বোপরি পারিবারিক জিনগত প্রভাবেও মানুষ স্নায়ুগত সমস্যার সম্মুখীন হন।

সামান্য অবহেলাতেও জীবন সংশয়ের মতো ঘটনা ঘটতে পারে। তাই দুঘন্টা থেকে ছ ঘণ্টার মধ্যে রোগের তারতম্যে রোগীকে জীবনদায়ী যন্ত্রের সুবিধা আছে এমন হাসপাতালে ভর্তি হওয়া উচিত। কিন্তু এটাও ঠিক শহরাঞ্চলে এই গোল্ডেন আওয়ার মেনে চলা সম্ভব হলে আজও প্রত্যন্ত গ্রামে শুধু নয়, অনেক মফ:স্বল শহরেও সম্ভব হচ্ছে না। সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে একথাই জানালেন, এই সংগঠনের পক্ষে স্নায়ুরোগ বিশেষজ্ঞ ডাঃ সুকল্যান পুরকায়স্থ। তিনি বলেন, নিউরো ইনভেনশন একাধারে শিল্প ও বিজ্ঞান।

একটি হার্ট অপারেশন অনেক সোজা মস্তিষ্ক অপারেশনের তুলনায়। মাথার ভিতরে স্নায়ু অসংখ্য ও সূক্ষ জটিল। সেক্ষেত্রে শল্য চিকিৎসকের অনেক ধৈর্য্য ও কুশলতার সঙ্গে কাজ করতে হয়। আজকাল স্ট্রোকের রোগীদের ও হার্টের রোগীদের মতো মস্তিষ্কে স্টেন্ট বা পেসমেকার বসানো হয়। সুতরাং প্রতিনিয়ত স্নায়ু সংক্রান্ত চিকিৎসা বিজ্ঞানের দৈনন্দিন অগ্রগতির সঙ্গে পরিচিত থাকাটা জরুরি। বিশ্বে স্নায়ু রোগীদের সংখ্যা দিনদিন বাড়ছে। কলকাতায় অনুষ্ঠিত চার দিনের এই কনফারেন্স আমাদের আরও সমৃদ্ধ করবে।

ফলে আগামী দিনে আমরা চিকিৎসা পরিষেবার ক্ষেত্রে রোগীদের মুখে হাসি ফোটাতে পারব বেশি করে।অস্বীকার করার উপায় নেই, আমাদের ১৩৬ কোটি মানুষের দেশে নিউরো চিকিৎসকের সংখ্যা বেশি হলে তিন হাজার। সেক্ষেত্রে স্নায়ু রোগ সংক্রান্ত সর্বাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারে রোগীদের লোকাল এনাস্থেশিয়া করে অপারেশন হচ্ছে , রোগীও দিব্যি গান শুনছেন।

অত্যাধুনিক ডিপ ব্রেন স্টিমুলেশন, নিউরো নেভিগেশন প্রসেস, ব্রেন পেসমেকার, স্টিরিও ট্যাক টিক, ব্রেন বায়োপসি, রোবোটিক থেরাপি, ভার্চুয়াল রিহ্যাব ও এন্ডোস্কোপি অফ ব্রেনের মত নতুন পদ্ধতি স্নায়ু রোগের চিকিৎসার ক্ষেত্রে নতুন দিশা দেখাচ্ছে।

More from GeneralMore posts in General »

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *