Press "Enter" to skip to content

করোনা-র পরিপ্রেক্ষিতে “ভার্চুয়াল” – বর্ষাকালীন সংসদের অধিবেশনের ভাবনা চিন্তা কেন্দ্রীয় সরকারের।

Spread the love

শুভদ্যুতি দত্ত: কলকাতা, ১ জুন ২০২০। করোনার পরিপ্রেক্ষিতে সমস্ত বিরোধীদলের জোরদার দাবি ছিল সরকার পক্ষের সঙ্গে মুখোমুখি বৈঠক। কার্যত তা সম্ভবপর হয়নি। এমতাবস্থায় আগামী বুধবার সংসদীয় দলের বৈঠক রয়েছে। প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেস সহ ২২টি দল এককাট্টা। কেন্দ্রের তরফে করোনা-র পরিপ্রেক্ষিতে একতরফা ভাবে নেওয়া সিদ্ধান্তগুলি সঠিক নয়। এতে সমূহ বিপদ বাড়ছে । দেশজুড়ে জনতা কার্ফুর পরপরই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে মোদী সরকার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তার বিরোধিতা না করলেও এ নিয়ে মতবিরোধ চরমে ওঠে। গত মার্চ মাসের শেষসপ্তাহ থেকে এ পর্যন্ত লকডাউনের জেরেই জনজীবনে সুদূরপ্রসারী প্রভাব পড়েছে। এই অভিমত বিরোধী দলের। রিজার্ভ ব্যাঙ্কের তরফেও দেশের অর্থনীতিতে যে প্রভাব বিস্তার করেছে গভর্নর শক্তিকান্ত দাশও তা মানছেন। এ প্রসঙ্গে তিনি জানান, বাজারে নগদের লেনদেন বজায় রাখতে ও আমানত সংগ্রহের জন্য নানা পন্থা পদ্ধতি নিয়ে ও পর্যালোচনা করা হয়েছে একাধিকবার । এই অচলাবস্থার পরিবেশ থেকে বেরিয়ে আসতে সর্বস্তরে চলছে আলাপ আলোচনা। অথচ, কেন্দ্রের শাসক দল বিরোধীদের উপেক্ষা করছে। এড়িয়ে যাচ্ছে বারবার। পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে বিভিন্ন পর্যায়ে দফায় দফায় বৈঠকের পর বিজেপিও মোকাবিলার জন্য প্রস্তুতি নিতে চলেছে। অবশেষে রাজি হয়েছে সংসদীয় দলের বৈঠকের। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে ঐ বৈঠক শুধু সময়ের অপেক্ষা মাত্র। উল্লেখ্য, কম্পিউটারের সাহায্য নিয়ে কোনও কিছুর অবাস্তব রূপ ফুটিয়ে তোলার অর্থ – কার্যসিদ্ধি(ভার্চুয়াল)। সংসদের বর্ষাকালীন অধিবেশনের দিন স্থির না হলেও আজ একদফা আলোচনা হয়েছে। এবার ভার্চুয়াল বৈঠকের বিষয়টিও উঠে আসে। সংসদের সেন্ট্রাল হলে লোকসভার অধিবেশনের কথা ভাবা হয়েছে। রাজ্যসভার অধিবেশনের বিষয়, লোকসভার চেম্বারে করানো যায় কিনা তা এই মুহূর্তে ভাবনা চিন্তার স্তরে রয়েছে সরকারের। শীঘ্রই এ নিয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। তবে, সমস্ত পথ খুলে রাখা হচ্ছে। সামাজিক দূরত্ব রক্ষার্থে এ ব্যাপারে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। লোকসভার অধ্যক্ষ ওম বিড়লা ও রাজ্যসভার চেয়ারম্যান ভেঙ্কাইয়া নাইডু আজ ঐ বিষয়ে প্রাথমিকভাবে আলোচনার মাধ্যমে সমস্যার সমাধানে পারস্পরিক সাহায্য করতে অঙ্গীকারবদ্ধ। আরো জানা গিয়েছে, একদিন অন্তর বসবে অধিবেশন। প্রসঙ্গতঃ রাজধানী দিল্লিতে দূষণ রুখতে খানিকটা জোড় বিজোড় নীতির মতোই এমনতর ভাবনা। সর্বশেষ খবর অনুযায়ী, দীর্ঘ মেয়াদী এই ভাবনা। এবং তা সময়ের দাবি বলে ও সরকার পক্ষ মানছেন। এই সন্ধিক্ষণে বিরোধীরা ভূমিকা নিয়ে তাদের মধ্যে অনেকেই ভাবছেন।

More from GeneralMore posts in General »

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *