Press "Enter" to skip to content

হিন্দি আইটেম সং রসগোল্লা গাওয়ার অপরাধে দুই মহিলা শিল্পীকে গরম রডের ছ্যাঁকা দেওয়া হলো….।

গোপাল দেবনাথ : কলকাতা, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২২।
সম্প্রতি প্রকাশিত আইটেম সং রসগোল্লা গান গাওয়ার জন্যে দুই মহিলা সঙ্গীত শিল্পীকে গরম লোহার রডের ছেঁকা দিয়ে বেধড়ক পেটাল দুষ্কৃতীরা। এই ঘটনায় থানায় এফ আই আর করেও কোন সুরাহা হয়নি বলে অভিযোগ শিল্পীদের।

ঘটনার সূত্রপাত গত ১২ সেপ্টেম্বর উত্তর ২৪ পরগনার জেলার খড়দহের দোপেরিয়া অঞ্চলে। হামলাকারীরা ছিল দুজন। দুজনেরই মাথায় হেলমেট ও মুখে মাস্ক ছিল।
কলকাতার দুই মহিলা শিল্পী শ্রী ভদ্র এবং সন্নতি মিত্র সম্প্রতি হিন্দি ভাষায় ইউটিউবে একটি রসগোল্লা নামে আইটেম সং লঞ্চ করেন। এক সপ্তাহের মধ্যেই সেই গানের ভিউ লক্ষাধিক ছাড়িয়ে যায়। ভিডিওটি অশ্লীল এই অভিযোগ তুলে কিছু লোক দুই শিল্পীকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকিও দেয় ফেসবুক কমেন্টের মাধ্যমে।
গত ১২ সেপ্টেম্বর সোমবার সন্ধ্যাবেলায় উত্তর ২৪ পরগনার দোপেরিয়ায় এক বন্ধুর বাড়িতে এই গানের সাফল্যে পার্টির আয়োজন করেন। তা ফেসবুকে আগে থেকে লাইভ করে জানান ওই শিল্পীরা।
১২ সেপ্টেম্বর তারা যখন ওই পার্টির জন্যে দোপেরিয়াতে তাদের বান্ধবী ববি মণ্ডলের বাড়িতে যাচ্ছিলেন সেই সময় রাস্তায় তারা গাড়ি থেকে নামতেই হঠাৎ করে গলির মধ্যে মাস্ক পরিহিত দুজন দুষ্কৃতী বাইকে করে এসে গরম কোনো লোহার রড জাতীয় জিনিস দিয়ে তাদের উপর হামলা করে। শিল্পী শ্রী ভদ্রের ডান হাত এবং ডান বুকে এবং সন্নতি মিত্রের মাথায় আঘাত করেন এবং অশ্রাব্য ভাষায় তাদের গালিগালাজ করতে থাকে। তারা বলতে থাকে এই আপত্তিকর গান তারা কেন ইউটিউবে আপলোড করেছেন ?

এরপর বাইকে চেপে দুষ্কৃতিরা পালিয়ে যায়। খানিকক্ষণের মধ্যেই সন্নতি র কান থেকে রক্ত পড়া শুরু হয় এবং তিনি জ্ঞান হারান। এরপরে স্থানীয় জনগণের সহায়তায় তারা কোনভাবে কাছাকাছি বন্দীপুর চিকিৎসা কেন্দ্রে পৌঁছান এবং রহড়া থানায় এফ আই আর দায়ের করেন।
শ্রী ভদ্র জানান, যে কোন শিল্পীর গান গাওয়ার অধিকার আছে। গানটি নিয়ে এবং গানের মধ্যে ব্যাবহৃত ছবি নিয়ে কারও আপত্তি থাকলে তারা জানাতে পারেন। এভাবে শিল্পীদের উপর হামলা করা একদম ঠিক কাজ নয়।


আজ প্রেস ক্লাব কলকাতায় সাংবাদিক সম্মেলনে শ্রী ভদ্র বলেন, মহিলা শিল্পী হওয়ার জন্যে তাদের উপর এভাবে নৃশংস হামলা হল।
এই ধরনের ভিডিও এলবাম একজন বলিউড সেলিব্রিটি ইউ টিউ বে আপলোড করলে কারও আপত্তি থাকে না। একজনকে অনামী শিল্পী একই ধরণের কাজ করলে সঙ্গে সঙ্গে তাদের অ্যাকাউন্ট ব্লক করে দেওয়া হয়। তাদের উপর হামলা হয়। এটা শুধু নারী বলে নয়, পুরুষদের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। তবে যদি নারী হয় তাহলে সমস্যাটা আরও বহুগুণ বেশি।


সন্নতি মিত্র বলেন, এ ব্যাপারে পুলিশকে অভিযোগ জানানো হলেও এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করতে পারে নি। তাই প্রশাসনের কাছে একান্ত অনুরোধ অবিলম্বে দুষ্কৃতীদের গ্রেফতারের ব্যবস্থা করা হোক।

More from EntertainmentMore posts in Entertainment »
More from GeneralMore posts in General »

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.