Press "Enter" to skip to content

সুন্দরবনের গোসাবা অঞ্চলের আম্ফান ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে  ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করলেন বরানগরের অজয় গুপ্তা……….

গোপাল দেবনাথ : কলকাতা, ২০ জুলাই, ২০২০।ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড় আম্ফান এ রাজ্যের সাথে শহর কলকাতায় বহু ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এখনও বহু অঞ্চলে ঘূর্ণিঝড়ের ছাপ আজও স্পষ্ট ভাবে দেখা যাচ্ছে। সমাজসেবী অজয় গুপ্তা ইতিমধ্যে আক্রান্ত অঞ্চলে কলকাতায় বসবাসকারি কয়েক শতাধিক ক্ষতিগ্রস্তদের হাতে ত্রাণ সামগ্রী তুলে দিয়েছেন।করোনার ভাইরাসের মহামারীর সময়ে আসা ঘূর্ণিঝড় আম্ফান পশ্চিমবঙ্গের অনেক জেলাতে প্রচুর ক্ষতি সাধন করেছে, সেখানকার মানুষ এখনও প্রতিনিয়ত ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। অনেক জেলায় আম্ফানের সর্বনাশে এতটা ক্ষয়ক্ষতি হয়েছিল যে আজও সেখানকার মানুষ এর যন্ত্রনা থেকে মুক্ত হতে পারেনি। জনজীবন সংকটে পড়েছে। অনেক বাড়িঘর ধ্বংস হয়ে গেছে। মাথায় উপর কোনও ছাদ নেই। বরানগর পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর গীতা দেবী গুপ্তা’র পুত্র অজয় গুপ্তা দুঃস্থ মানুষের জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন এবং কয়েকশো অসহায় মানুষের জন্য প্রশংসনীয় পদক্ষেপ নিয়েছেন। গত রবিবার সুন্দরবনের গোসাবা অঞ্চলের আম্ফান ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। মিঃ গুপ্তা জানালেন আমরা পাঁচ শতাধিক ত্রিপল, পাঁচশো মশারি, পাঁচশো ধুতি, পাঁচশো টর্চ, মহিলাদের জন্য পাঁচশো শাড়ি, ছেলে-মেয়েদের জন্য পাঁচশো জামা কাপড়, পাঁচ শতাধিক লুঙ্গি, পাঁচশো গামছা বিতরণ সহ পাঁচ শতাধিক মাস্ক, সাবান ও কম্বল বিতরণও করা হয়। তিনি আরও জানান, বরানগরে লকডাউনের সময় তিন হাজার পরিবারকে শুকনো খাবারও দেওয়া হয়েছিল। একই সাথে, এলাকায় একটি অস্থায়ী রান্নাঘর তৈরি করা হয়েছিল এবং সেখান থেকে দশ হাজারের বেশি মানুষের মুখে অন্ন তুলে দেওয়া হয়েছে। মিঃ অজয় গুপ্তা কথা প্রসঙ্গে জানালেন তিনি গত কয়েক বছর ধরে এ জাতীয় সমাজসেবার কাজ শুরু করছেন। আমি একজন জনগণের প্রতিনিধি হওয়ায় নিজের লোকালয়ে সেবা করার অপেক্ষায় রয়েছি।

More from GeneralMore posts in General »

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.