Press "Enter" to skip to content

শ্যাম সুন্দর কোং জুয়েলার্স-এর কলকাতা আর্ট ফেয়ারের দ্বিতীয় বছরের উদ্যোগে সামিল দেশ-বিদেশের গুণী শিল্পীরা…..৷

গোপাল দেবনাথ : কলকাতা, ১৫ মে ২০২২। সোনার অলংকারের জগতে শ্যাম সুন্দর কোং জুয়েলার্স এর নাম প্রায় সকলেই জানেন। এই সংস্থার উদ্দেশ্য কেবলমাত্র গহনা বিক্রি করে অর্থ উপার্জন নয়।  সাংস্কৃতিক জগতে শ্যাম সুন্দর কোং জুয়েলার্স এর পৃষ্ঠপোষকতা সারা বছর ধরেই জারি থাকে।

শ্যাম সুন্দর কোং জুয়েলার্স-এর কলকাতা আর্ট ফেয়ারের দ্বিতীয় বছরের উদ্যোগে সামিল দেশ-বিদেশের শিল্পীরা ৷শাস্ত্রীয় সংগীত হোক বা যে কোন ধরণের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে শ্যাম সুন্দর কোং জুয়েলার্স সহায়তা সর্বদাই থাকে। এই মুহুর্তে শহর কলকাতায় শ্যাম সুন্দর কোং জুয়েলার্স-এর নিবেদনে “কলকাতা আর্ট ফেয়ার” এর দ্বিতীয় পর্ব আয়োজিত হয়েছে। আজ ১৫ মে রবিবার থেকে শুরু হওয়া এই অভিনব প্রদর্শনী চলবে আগামী ১৮মে বুধবার পর্যন্ত আইসিসিআর কলকাতায় ৷

নানা গ্যালারি জুড়ে আর্টের পসরা সাজিয়ে বসেছেন দেশ-বিদেশের নানা শিল্পী। এবছর প্রায় ৪৫০ শিল্পীর প্রায় ১০০০এর বেশি আঁকা প্রদর্শিত হচ্ছে। উদ্যোগের নেপথ্যে মূল কারণ উদীয়মান শিল্পীদের তাঁদের শিল্পের প্রদর্শনের পাশাপাশি বিক্রির একটা ব্যাবস্থা করা। আজকাল খুব বড় শিল্পীর আর্ট যতটা সহজে বাজার পায়, অনেক গুণী শিল্পী সেই বাজার থেকে দূরেই থাকেন।

এই বিশেষ আয়োজনে শিল্পের নানা আঙ্গিক থাকছে আঁকা, ছবির নানা মাধ্যমের সাথে থাকছে ফটোগ্রাফি, স্কাল্পচার এর মধ্যে মহিলা শিল্পীদের কাজ বেশি জায়গা জুড়ে আছে। চীন, ইউক্রেনে থেকেছেন এখন ভারতেই পাকাপাকি ভাবে থাকেন এমন শিল্পীদের ছবিও আছে এই প্রদর্শনী তে।

আছে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, যামিনী রায়, অবনীন্দ্রনাথ ঠাকুর থেকে শুরু করে যোগেন চৌধুরী, শুভাপ্রসন্ন আরো অনেকের ছবি সঙ্গে নতুন শিল্পীদের অসাধারণ সব ছবি।

আর সঙ্গে থাকছে গান। এই আয়োজনের সাথে বিশেষ ভাবে যুক্ত বিশিষ্ঠ সঙ্গীত শিল্পী দেবজ্যোতি মিশ্র। আজ ১৫ মে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে হয়েছে তাঁর বিশেষ নিবেদন। এর পর আরো দুদিন থাকছে তাঁর ‘গানের পাঠশালা’ বিশেষ পরিবেশনা সত্যজিৎ রায় অডিটোরিয়ামে।

থাকবে রবীন্দ্রনাথ থেকে শুরু করে সত্যজিতের সঙ্গীত, সলিল চৌধুরীর গান, ঋতুপর্ণ ঘোষের ছবির অনেক সুর-গান সব মিলিয়ে সঙ্গীতের সাথে আর্ট এর এক মেলবন্ধন ঘটবে এই শিল্পের মহাকর্মযজ্ঞে।

শ্যাম সুন্দর কোং জুয়েলার্স এর কর্ণধার শ্রী রূপক সাহা সাংবাদিকদের বলেন, “এই উদ্যোগের সাথে আমরা শুরুর দিন থেকেই আছি। আমরা নিজেরা গহনা শিল্পের সাথে জড়িত সেটাও যেমন আর্ট যেমন গহনার ডিজাইন ঠিক একই ভাবে ফাইন আর্টের নানা দিকের প্রতিই আমরা বরাবর উৎসাহী।

নতুন শিল্পীদের পাশে দাঁড়ানো, তাঁদের কাজকে সমর্থন করার জন্যই এই উদ্যোগে আমরা সামিল হোই। মাঝে এক বছর করোনার জন্য করা সম্ভব না হলেও আশা করি কলকাতা আর্ট ফেয়ারের এই দ্বিতীয় বছরের এই উদ্যোগ সবার ভালো লাগবে।”

More from CultureMore posts in Culture »
More from InternationalMore posts in International »

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.