Press "Enter" to skip to content

রাজ্য পুলিশে পদোন্নতি নিয়ে হাইকোর্টে মামলার সম্ভাবনা?…… 

মোল্লা জসিমউদ্দিন : কলকাতা, ১৬, নভেম্বর, ২০২০। এবার সরাসরি রাজ্য পুলিশের পদোন্নতি নিয়ে আইনজীবীর অনিয়মের অভিযোগ। ওই আইনজীবী পুলিশমন্ত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী , মুখ্যসচিব সহ ডিজিপি কে চিঠি পাঠিয়েছে। রাজ্য পুলিশের কনস্টেবল পদের পদোন্নতির তালিকা নিয়ে অভিযোগ তোলা হয়েছে । চলতি মাসের  গত ৭ তারিখে এক হাজার কনস্টেবলের পদোন্নতির তালিকা প্রকাশ করে ‘স্ক্রটিনি বোর্ড’ গঠন করে রাজ্য পুলিশ।  নভেম্বর মাসের ১০ থেকে ১৩ তারিখ বিভিন্ন জেলায় তালিকা ভুক্তদের প্রয়োজনীয় নথি নিয়ে রিপোর্ট করতে বলা হয়। তবে  এই পদোন্নতিতে অনিয়মের অভিযোগ তুলে গত শুক্রবার ১৩ই নভেম্বর পুলিশমন্ত্রী, মুখ্যসচিব এবং ডিজিপি কে চিঠি দেন কলকাতা হাইকোর্টের বিশিষ্ট আইনজীবী মুকুল বিশ্বাস মহাশয়। চিঠিতে তিনি জানান, -“২০১৮ সালে এএসআই পদের জন্য ৪৮২ জন কনস্টেবল পিপিটি ট্রেনিং সফলভাবে পাশ করেন। তবে  এতদিন পর্যন্ত তাদের নিয়োগ করা হয়নি। এবারের তালিকায় কোনও কারন ছাড়াই বাদ দেওয়া হয়েছে ২২৫ জনেরর ট্রেনিং প্রাপ্তদের নাম। স্বভাবতই এই বৈষম্য নিয়ে কনস্টেবলদের মধ্যে ক্ষোভ তৈরি হয়েছে”। চিঠিতে আইনজীবী আরও জানিয়েছেন, – ‘এক হাজার জনের তালিকাভুক্তদের জন্ম তারিখ, চাকরিতে যোগ দানের তারিখ, কোনও শাস্তি আছে কি না তা স্ক্রুটিনি বোর্ড উল্লেখ করেনি। সিনিয়র কনস্টেবলদের গ্রেডেশন লিস্ট ছাড়াই এই তালিকা তৈরি করা হয়েছে। তালিকায় সিনিয়র কনস্টেবলদের বাদ দিয়ে অনেক জুনিয়র কনস্টেবলদের নাম রাখা হয়েছে। এছাড়া চাকরিতে যোগ দেওয়ার তারিখ এক থাকলেও অনেকের নাম বাদ গিয়েছে। এমন অনেকে রয়েছেন, যাদের ১৬ বছর চাকরি হয়েছে। পিপিটি ট্রেনিংয়ে পাশও করেছেন। কিন্তু তালিকায় তাদের পরিবর্তে ১৪ বা ১৫ বছর চাকরি করছেন, এমন জুনিয়র কনস্টেবলদের নাম রয়েছে”। এই তালিকা বাতিল করে সঠিক ও স্বচ্ছভাবে নতুন তালিকা তৈরির আবেদন করেছেন ওই আইনজীবী।কোন প্রশাসনিক সদুত্তর না পেলে এই বিষয়ে তিনি কলকাতা হাইকোর্টে রিট পিটিশন দাখিল করবেন বলে জানিয়েছেন।  

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.