Press "Enter" to skip to content

ফ্লোরেন্স ভারতের গ্রামীণ মানুষের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার ওপর এক পরিসংখ্যান-নির্ভর গবেষণা চালিয়েছিলেন…..।

জন্মদিনে স্মরণঃ ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল

বাবলু ভট্টাচার্য : ক্রিমিয়ার যুদ্ধে নার্সিং ইতিহাসে বৈপ্লবিক উন্নয়ন ও পরিবর্তন ঘটেছিল। অপ্রতুল চিকিৎসাসেবা ও সৈন্যদের দুরাবস্থার মধ্যে ৩৮ জন সেবিকাসহ সেবার আলো হাতে নিয়ে পাশে এসে দাঁড়ান আধুনিক নার্সিং-এর অগ্রদূত ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল।

তিনি তাঁর জীবনের সবটুকু সময় ব্যয় করেছেন মানুষের সেবায়। The Lady With the Lamp নামে খ্যাত আধুনিক নার্সিং সেবার অগ্রদূত, সমাজ সংস্কারক, পরিসংখ্যানবিদ, লেখক, নারীমুক্তির দিশারী ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেলের জন্ম এক সম্ভ্রান্ত ও ধনাঢ্য ব্রিটিশ পরিবারে। পিতা উইলিয়াম এডওয়ার্ড, মা ফ্রান্সিস নাইটিংগেল।

তাঁর শৈশব কেটেছে ইংল্যান্ডের হ্যাম্পশায়ার ও ডার্বিশায়ার অঞ্চলে তাদের পুরনো বাড়িতে। তিনি অল্প বয়স থেকেই মানবতার সেবায় নিজেকে উৎসর্গ করার ব্রত নিয়েছিলেন। পরিবারের আপত্তি উপেক্ষা করে তিনি এ কাজ বেছে নেন।

ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল বিশ্বাস করতেন স্রষ্টা তাকে সেবিকা হওয়ার জন্য পাঠিয়েছেন। কারণ তিনি শুধু একজন স্ত্রী কিংবা মা হিসেবে তার পরিচিতি সীমাবদ্ধ থাক এটা মেনে নিতে পারেননি। তিনি নার্সিংয়ে জ্ঞানার্জন করেন। উন্নত স্বাস্থ্যসেবা প্রদানে তার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা অনস্বীকার্য।

পারিবারিক বাধা সত্ত্বেও কঠোর পরিশ্রম করে তিনি নার্সিংয়ে জ্ঞানার্জন করেন। পরবর্তী সময়ে ফ্লোরেন্স ভারতের গ্রামীণ মানুষের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার ওপর এক পরিসংখ্যান-নির্ভর গবেষণা চালিয়েছিলেন— যা ভারতে উন্নত স্বাস্থ্যসেবা বিধানে এক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। ১৮৫৯ সালে তিনি রয়্যাল স্ট্যাটিসটিক্যাল সোসাইটির প্রথম সারির সদস্য নির্বাচিত হন।

১৯১০ সালের ১৩ আগস্ট লন্ডনের পার্ক লেনে তিনি মারা যান।

ফ্লোরেন্স নাইটিঙ্গেল ১৮২০ সালের আজকের দিনে (১২ মে) ইতালির ফ্লোরেন্সে জন্মগ্রহণ করেন।

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.