Press "Enter" to skip to content

প্রোগ্রেসিভ ইউনাইটেড ইঞ্জিনিয়ার্স অ্যাসোসিয়েশন এর পক্ষ থেকে পালিত হল ইঞ্জিনিয়ার্স দিবস …….।

নিজস্ব প্রতিনিধি : কলকাতা, ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২২। পশ্চিমবঙ্গের সরকারী ও স্বায়ত্তশাসিত বিভিন্ন কার্যালয়ে কর্মরত ইঞ্জিনিয়াররা ২০১৫ সালের ৩০ অগস্ট কোলকাতায় তৈরী করেন ‘প্রোগ্রেসিভ ইউনাইটেড ইঞ্জিনিয়ার্স অ্যাসোসিয়েশন’ (Progressive United Engineers’ Association)।
তারপর থেকে কোলকাতাতেও ১৫ সেপ্টেম্বর পালিত হচ্ছে ‘ইঞ্জিনিয়ার্স ডে’।
‘প্রোগ্রেসিভ ইউনাইটেড ইঞ্জিনিয়ার্স অ্যাসোসিয়েশন’ আয়োজিত ‘ইঞ্জিনিয়ার্স ডে’ নামাঙ্কিত এই অনুষ্ঠান টি অনুষ্ঠিত হলো কলকাতার ইউনিভার্সিটি ইনস্টিটিউট হলে। উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের মন্ত্রী মানস ভূঁইয়া, অধ্যাপক মনোরঞ্জন সরকার, ফুটবল খেলোয়াড় অমিত ভদ্র, চিকিৎসক ইন্দ্রনীল বর্গী, কোলকাতা সিটি সেশন কোর্ট-এর মুখ্য বিচারক সিদ্ধার্থ কাঞ্জিলাল সহ সরকারী ও স্বায়ত্তশাসিত বিভিন্ন সংস্থার ইঞ্জিনিয়ারগণ।
উদ্বোধকের আগমনের জন্য দীর্ঘক্ষণ কালাতিপাত করার পরেও উদ্বোধক না আসায় মঞ্চে উপস্থিত অন্য অতিথিবৃন্দ সমবেতভাবে প্রদীপ প্রজ্জ্বলনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।

পরে স্বাগত ভাষণ দিতে গিয়ে আয়োজক সংস্থার অন্যতম সাধারণ সম্পাদক অনন্তকুমার নন্দী (General Secretary, Anantakumar Nandi) ক্ষোভের সাথে বলেন, “ভারতবর্ষ সহ এই পশ্চিমবঙ্গে যেখানে যে স্থাপত্যই সৃষ্টি বা উদ্বোধন হোক না কেন, সেখানে ভুল করেও স্থাপত্যবিদ বা যন্ত্রতত্ত্ববিদ কিংবা প্রযুক্তিবিদ যাদের সাধারণ ভাবে ইঞ্জিনিয়ার বলা হয়, তাঁদের অবদান তথা ভূমিকার কথা কখনোই স্মরণ করা হয় না।”

মঞ্চে যখন শ্রী নন্দী স্বাগত ভাষণ রাখছেন তখন মঞ্চের পেছনে সাজঘরে বসে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে ‘প্রোগ্রেসিভ ইউনাইটেড ইঞ্জিনিয়ার্স অ্যাসোসিয়েশন’-এর সেক্রেটারি জেনারেল সুব্রত ঘোষ (Secretary General, Subrata Ghosh) জানান, “এই মুহুর্তে হাওড়া, হুগলি, দঃ ২৪ পরগনার বিভিন্ন ক্ষেত্রের ইঞ্জিনিয়ার ভাই বোনেরা এখানে উপস্থিত রয়েছেন। ‘কোলকাতা পৌরনিগম’-এর বিভিন্ন বিভাগে যতজন ইঞ্জিনিয়ার কাজ করেন তার ৯৮ শতাংশ আমাদের সংস্থার ছত্রছায়ায় চলে এসেছেন, এর পাশাপাশি ‘পূর্ত বিভাগ’-এর শতকরা ৮০ ভাগ ইঞ্জিনিয়ার সহ ‘পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন’, ‘সেচ ও জলপথ’ সহ একাধিক বিভাগে কর্মরত ইঞ্জিনিয়ারগণ ধীরে ধীরে আমাদের সংস্থার সাথে একত্রিত হচ্ছেন। আমরা আশা করি অদূর ভবিষ্যতে সারা পশ্চিমবঙ্গেই এই সংগঠন ছড়িয়ে পড়বে।”

সুব্রত ঘোষ-এর পাশে বসে সংস্থার অন্যতম সাধারণ সম্পাদক দেবরাজ সিংহ রায় (General Secretary Debraj Singha Ray) জানান, “শিক্ষক, পরিষেবিকা, চিকিৎসক প্রভৃতির মতো ইঞ্জিনিয়ারদের জন্যও একটা পৃথক দিন আগে থেকেই চিহ্নিত করা আছে, কিন্তু যেকোনো কারণেই হোক সেই দিনটা নিয়ে কোথাও সেভাবে চর্চা হয় না। এই দিনটাকে মানুষের সামনে আনা ও ইঞ্জিনিয়ারদের সম্মান আদায়ের বিষয়কে মাথায় রেখেই আজ আমাদের এই অনুষ্ঠানের আয়োজন।”

More from TechnologyMore posts in Technology »

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.