Press "Enter" to skip to content

নানা উপহারের ডালিতে  পালিত হল ভ্যালেন্টাইন ডে….।

Spread the love

সঙ্গীতা চৌধুরী : কলকাতা, ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২২। আজ ভ্যালেন্টাইন ডে। ভ্যালেন্টাইন ডে মানেই ভালোবাসার দিবস। একে অপরের কাছে নিবেদনের দিন। ভালোবাসা হল মানুষের সহজাত প্রবৃত্তি। এই সহজাত প্রবৃত্তি প্রকাশ করায় প্রাণ বলিদান করতে হয়েছে অনেককে। তাই জন্মসূত্রে প্রাপ্ত এই বিশেষ অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে যাদের জীবন দিতে হয়েছে তাদের মহিমান্বিত করতেই প্রতি বছর একটি নির্দিষ্ট দিনে ‘ ভ্যালেন্টাইন ডে ‘ বা ভালোবাসার দিবস পালন করা হয়। প্রতি বছর একযোগে সারা বিশ্বে এই দিনটি পালিত হয়। পৃথিবীতে যতগুলো বিশেষ দিন রয়েছে তার মধ্যে এই দিনটি তরুণ- তরুণীদের কাছে বিশেষ গুরুত্বপূর্ণ। অনেকদিন আগে থেকেই তারা এই দিনটির জন্য অপেক্ষারত থাকে। কেউ এই দিন প্রথম প্রেম নিবেদন করে আবার কেউ প্রেমের বিশেষ উদযাপন করে। তবে এই দিনটির জন্য শুধু প্রেমিক- প্রেমিকারা অপেক্ষা করে না, কিছু ব্যবসায়ীও এই দিনটির দিকে তাকিয়ে থাকে। কারণ এই দিন শুধু ভালোবাসা বিনিময় করলেই চলবে না, দিনটি উদযাপনের জন্য সঙ্গে থাকা চাই আকর্ষণীয় উপহার।

তবে প্রতি বছর রোজ ডে দিয়ে শুরু হয় ভ্যালেন্টাইন উইক। এরপর এক এক করে আসে চকোলেট ডে, টেডি ডে, প্রমিস ডে, হাগ ডে , কিস ডে আর শেষে ভ্যালেন্টাইন ডে। তাই রোজ ডে থেকে ফুলের ব্যবসা দিয়ে এই উৎসব মরশুমের শুরু। প্রতিটি উৎসবের সঙ্গেই বিপণি সংস্থাগুলির বাজার যুক্ত থাকে। তাই তারা সেই উৎসবের কথা মাথায় রেখে সেইরকম উপহারের ডালি সাজিয়ে রাখে। এক্ষেত্রেও গোলাপ, চকলেট, টেডি,  হার্ট শেপের বেলুন, কার্ড ও আরো নানা রকমারী সামগ্রীতে বাজার ভরে যায়। জুয়েলারীর শো – রুমগুলো  ভ্যালেন্টাইন ডের বিশেষ ডিসকাউন্টের বিজ্ঞাপনে চারদিক ভরিয়ে দেয়।

তবে এখন অনলাইন শপিং- এর যুগে একটি বিশেষ সাইটের সমীক্ষায় দেখা গেছে এবার ভ্যালেন্টাইন ডের উপহার শুধু ফুল, টেডি , চকলেটে বা এধরনের জিনিসেই আটকে নেই , আধুনিকতার ছোঁয়া লেগেছে উপহারেও তাই বিশেষ ডিসকাউন্টে বিক্রি হচ্ছে কন্ডোম,  মহিলাদের অন্তর্বাস ! আমাদের মধ্যে পাশ্চাত্যের  অনুকরণের প্রবনতা সব সময়ই ছিল। বর্তমান ইন্টারনেটের যুগে সারা বিশ্বই আমাদের হাতের মুঠোয়  তাই নতুন প্রজন্ম প্রেমের উদযাপনের ক্ষেত্রেও হয়তো পাশ্চাত্যের পথই অনুসরণ করছে । আর এই নতুন প্রজন্মের সঙ্গে তাল মিলিয়ে কিছু বিপনি সংস্থাও যৌনতার পন্যায়ন করছে। হয়তো বা তার উল্টোটাই ঘটছে।

তাই  শেষে একথাই  বলবো উপহার যাই হোক না কেন, আমরা যেন প্রকৃত ভালোবাসার মধ্যে দিয়ে এই প্রেমের দিবসের উদযাপন করি।

More from EntertainmentMore posts in Entertainment »
More from InternationalMore posts in International »

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Mission News Theme by Compete Themes.