Press "Enter" to skip to content

নতুন প্রতিভার অন্বেষণে……।

গোপাল দেবনাথ : কলকাতা, ২৫, জানুয়ারি, ২০২১। টালিগঞ্জের বাংলা ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে এই সময়ে খুব অল্প সংখ্যক পরিচালক আছেন যাঁরা প্রতিনিয়ত নতুন প্রতিভার সন্ধানে ব্যাপৃত থাকেন তাদের মধ্যে অন্যতম অভিনেতা, প্রযোজক এবং পরিচালক প্রবীর রায়। তিনি এমন একজন সতত উৎসাহী মানুষ যিনি তাঁর পরিচালিত ছায়াছবি এবং ধারাবাহিকে এমন অনেক নতুন শিল্পীকে সুযোগ করে দিয়েছেন সঙ্গীতে এবং অভিনয়ে। আজকের দিনে সেইসব শিল্পী ও কলাকুশলীরা এই সমাজে প্রতিষ্ঠিত।

বর্তমানে ফ্লোরে থাকা পরিচালকের নতুন ছবি “অগ্নিমন্থন”এ বুদ্ধদেব গাঙ্গুলীর সংগীত পরিচালনায় কন্ঠদান করেছেন তনুশ্রী দেব। একটি ফেইসবুক লাইভ অনুষ্ঠানে তনুশ্রীর গান শুনে পরিচালক প্রবীর রায় তাঁকে এই ছবিতে কন্ঠদানের সুযোগ করে দিয়েছেন। সুদূর শিলচরের বাসিন্দা তনুশ্রী সম্প্রতি গান রেকর্ডিংয়ের জন্য কলকাতা ঘুরে গেলেন। ওর অসাধারণ কণ্ঠ ও গায়কী, রেকর্ডিংএ উপস্থিত সবাইকে অবাক করে দিয়েছে !

এরকম আরও বহু উদাহরণ আছে। প্রবীরবাবুর প্রথম ছবি “কাল মধুমাস” এ গান গেয়েছেন প্রবাল মল্লিক এবং রেশমী চক্রবর্তী ভৌমিক। “যেতে নাহি দিব” ছবিতে প্লেব্যাক করেছেন সাগ্নিক সেন এবং প্রীতি বসু। শুধু গান নয়, ধারাবাহিক এবং ছায়াছবিতে অনেক নবীন শিল্পী অভিনয়ের সুযোগ পেয়েছেন। কালক্রমে অনেকে স্বনামধন্য হয়েছেন। প্রখ্যাত অভিনেত্রী রূপা গাঙ্গুলীর প্রথম আত্মপ্রকাশ প্রবীর রায়ের ধারাবাহিক “বিচিত্র তদন্ত”এ। ছোট ও বড়ো পর্দার পরিচিত মুখ সায়নী মিত্র, অঙ্গনা বসু প্রথম সুযোগ পান প্রবীর রায়ের জনপ্রিয় ধারাবাহিকে।

“কাল মধুমাস” ছবিতে প্রথম আত্মপ্রকাশ করেছিলেন সিরিয়াল অভিনেতা সুদীপ সরকার এবং রঞ্জিনী চট্টোপাধ্যায়। “যেতে নাহি দিব” ছবিতে প্রথমবার কাজ করেছেন ছোট পর্দার পরিচিত মুখ মল্লিকা সিনহা রায়। সমসাময়িক সমাজ জীবনের জ্বলন্ত প্রতিচ্ছবি “অগ্নিমন্থন” এও অনেক পরিচিত মুখের পাশাপাশি ওশনী দাস” , হৃদান চৌধুরী ও বৈশালী মজুমদার নামে তিনটি নতুন মুখ দেখা যাবে। “অগ্নিমন্থন ” ছবিতে প্রায় ২০ বছর পর অভিনয়ে ফিরছেন ৮০ র দশকের ডাকসাইটে সুন্দরী অভিনেত্রী “আলপনা গোস্বামী (বসু) ” !

এ প্রসঙ্গে পরিচালক শ্রী রায় জানালেন, আমাদের চারপাশে কতো প্রতিভা সুযোগের অভাবে হারিয়ে যাচ্ছে। আমি সাধ্যমতো তাদের একটা প্ল্যাটফর্ম দেবার চেষ্টা করি যাতে তারা নিজের প্রতিভার প্রতি সুবিচার করতে পারে। নতুন শিল্পীদের মানুষের সামনে উপস্থিত করার মধ্যে এক অদ্ভূত আনন্দ আছে। আমার ছেলে নীল রায়ের “FFACE” নামে একটি সংস্থাও অভিনয় ও মডেলিংয়ের জগতে অনেক নতুন ছেলেমেয়েকে সুযোগ করে দিয়েছে ! স্বস্তিকা দত্ত, শন ব্যানার্জী এদের মধ্যে কয়েকটি নাম !

এ রকম দরদী মানসিকতার জন্য পরিচালক প্রবীর রায়ের জন্য রইলো অনেক শুভেচ্ছা আর অভিনন্দন।

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.