Press "Enter" to skip to content

চিরতরে চলে গেলেন সংগীতপ্রেমী জর্জ বিশ্বাসের প্রিয় আলো কুন্ডু…….।

গোপাল দেবনাথ : কলকাতা, ২২, নভেম্বর, ২০২০। চিরতরে চলে গেলেন আমার প্রিয় মানুষ সদা হাসি খুশি সংগীতপ্রেমী ‘সাউন্ড উইং’ এর কর্ণধার আলো কুন্ডু। আলোদা র সাথে আমার দীর্ঘদিনের পরিচয়। ফেসবুকের মাধ্যমে যোগাযোগ টা আরো গভীর হয়েছিল। প্রতিদিন নতুন নতুন তথ্যসমৃদ্ধ লেখা পোস্ট করতেন আলো দা। আমার পোস্টএও সুচিন্তিত মতামত দিতেন।

আলোদা আমার নিউজ স্টারডম পোর্টালের লেখা প্রতিদিন পড়তেন এবং উৎসাহ দিতেন। এমনকি অসুস্থতার সময়ও আমার পোর্টাল প্রতিদিন পড়তেন। আলো দা এই বছরের বই মেলায় দেব সাহিত্য কুটিরের বই প্রকাশ অনুষ্ঠানে আমাকে বললো গোপাল আমার সাথে সাহিত্যিক সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায়ের সাথে ছবি তুলে দাও আমি তুলে দিয়ে ছিলাম।

২০২০ কলকাতা আন্তর্জাতিক পুস্তক মেলায় দেব সাহিত্য কুটিরের কর্ণধার শ্রী বরুন চন্দ্র মজুমদার, সাহিত্যিক শ্রী সঞ্জীব চট্টোপাধ্যায় এবং আলো কুন্ডু।

এই করোনা মহামারীর সময়ে ফেসবুক লাইভ এ আলোদা বহুদিন ধরে বহু অনুষ্ঠান পরিবেশন করেছেন। বিশেষ করে সুচিত্রা মিত্র ও জর্জ বিশ্বাস সহ বহু শিল্পীর গান আলো দা র সৌজন্যে শোনা গেছে। আমার মনে হয় কোনো সাংস্কৃতিক মনস্ক মানুষ আলোদা কে ভুলতে পারবে না। প্রিয়রঞ্জন কাঁড়ার: –‘আলো কুন্ডু’ নিছক একজন সংগীত-ব্যাবসায়ীর নাম নয়।

নিজের লেখা বই প্রকাশ অনুষ্ঠানে আলো দা।

বহু দুর্লভ সাংগীতিক মণি-মুক্তার সংগ্রাহক-মালিক, দেবব্রত বিশ্বাস-সুচিত্রা মিত্র সহ একটা সাংগীতিক যুগের অনুপুঙ্খ পর্যবেক্ষক-বিশ্লেষক এবং সর্বোপরি রসিক মানুষ। কিছুদিন আগেই ‘করুণাময়ী রানি রাসমণি’ সিরিয়াল নিয়ে ফেসবুকে মজা করে বলেছিলেন, “রামকৃষ্ণ এমনভাবে রোজ মা কালীর সঙ্গে আড্ডা মারছেন, যেভাবে গায়ক ইন্দ্রনীল দিদির (মুখ্যমন্ত্রী) সঙ্গে কথা বলেন।

” ওঁর ফেসবুক-বন্ধু হওয়ার সুবাদে অনেক কিছু জানার সুযোগ পেয়েছি। আমার নিজের পোস্টে ওঁর অমায়িক কমেন্ট দেখে আপ্লুত হয়েছি। কোভিড আক্রান্ত হয়ে যখন হাসপাতালে ভর্তি হলেন, তখনও জোর দিয়ে বলেছি, “ঘাবড়াবেন না, কোভিড এখন ফর্ম হারানো ব্যাটসম্যান।” আজ সব শেষ। মানুষের জীবন কত ভঙ্গুর, আজ আবারও বুঝলাম। দেবব্রত বিশ্বাস, সুচিত্রা মিত্রদের সঙ্গে নতুন লোকে ভালো থাকুন, আলোদা।


প্রবীর রায় : বিশিষ্ট অভিনেতা, — যে সময় সাউন্ড স্টুডিওর এত রমরমা হয়নি , হাথে গোনা কয়েকটা ষ্টুডিও ছিল , সেই সময় জর্জ বিশ্বাসের খুব কাছের একটি মানুষ , শুধু সংগীতকে ভালোবেসে একটা সাউন্ড ষ্টুডিও তৈরি করলেন দক্ষিণ কলকাতার মতিলাল নেহেরু রোডে ! সেই সংগীতপ্রেমী লোকটির নাম “আলো কুন্ডু” আর স্টুডিওটার নাম “সাউন্ড উইং !”
কোরোনাতে আক্রান্ত হয়ে আজ উনি চলে গেলেন ! তোমার প্রিয় মানুষটির কাছে চলে গেলে আলো ! ভালো থেকো , আনন্দে থেকো !

More from GeneralMore posts in General »

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.