Press "Enter" to skip to content

চলে গেলেন কবি ও চলচ্চিত্র নির্মাতা বুদ্ধদেব দাশগুপ্ত……।

বাবলু ভট্টাচার্য : প্রয়াত চলচ্চিত্র পরিচালক বুদ্ধদেব দাশগুপ্ত। দক্ষিণ কলকাতায় নিজের বাসভবনে মৃত্যু হল তাঁর। বেশ কিছুদিন ধরে অসুস্থ ছিলেন তিনি। বয়সজনিত কারণে সমস্যা ও কিডনির সমস্যায় ভুগছিলেন তিনি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৭ বছর।

বুদ্ধদেব দাশগুপ্ত ১৯৪৪ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি পশ্চিমবঙ্গের পুরুলিয়ার নিকটবর্তী আনারা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।

বুদ্ধদেব দাশগুপ্তকে নতুন করে পরিচয় করিয়ে দেয়ার কিছু নেই। বুদ্ধদেব ভালো ছাত্র ছিলেন। কলেজে পড়াতেন। কবিতা লিখতেন। কবিতায় তার নিজস্বতার জন্যে তিনি হয়ে ওঠেন আধুনিক বাংলা কবিতার একটি ঈর্ষনীয় নাম। কবিতা লিখতে লিখতেই একদিন চলচ্চিত্রে চলে এলেন তিনি।

১৯৬৮ সালে বুদ্ধদেব দাশগুপ্তের প্রথম ছবি, ডকুমেন্টারি। তারপর ১৯৭৫ এর আগে আরো কয়েকটি তথ্যচিত্র তিনি নির্মাণ করেন, যার মধ্যে একটা হচ্ছে ‘ঢোলের রাজা’।

তাঁর নির্মিত চলচ্চিত্রগুলোতেও কবিতার ছোঁয়া বিদ্যমান ছিল। তাঁর বিখ্যাত কয়েকটি ছবি হল- ‘বাঘ বাহাদুর’, ‘তাহাদের কথা’, ‘চারাচার’ ও ‘উত্তরা।’

শ্রেষ্ঠ পাঁচটি চলচ্চিত্র ‘বাঘ বাহাদুর’ (১৯৮৯), ‘চরাচর’ (১৯৯৩), ‘লাল দরজা’ (১৯৯৭), ‘মন্দমেয়ের উপাখ্যান’ (২০০২) , ‘কালপুরুষ’ (২০০৮), ‘দৌরাতওয়া’, (১৯৭৮)-এর জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, এবং ‘তাহাদের কথা’ (১৯৯৩) বাংলাতে শ্রেষ্ঠ ফিচার ফিল্মের জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার জিতেছেন।

পরিচালক হিসেবে তিনি ‘উত্তরা’ (২০০০) এবং ‘স্বপনের দিন’ (২০০৫)-এর জন্য দুইবার সেরা নির্দেশনার জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার জিতেছেন।

বছরের পর বছর ধরে তিনি গভীর আরালে, কফিন কিম্বা সুটকেস, হিমজগ, ছাতা কাহিনি, রোবটের গান, শ্রেষ্ঠ কবিতা, ভোম্বোলের আশ্চর্য কাহিনি ও অন্যান্য কবিতা সহ কবিতার বিভিন্ন রচনা প্রকাশ করেছেন।

 80 total views,  1 views today

More from GeneralMore posts in General »

Be First to Comment

Leave a Reply