Press "Enter" to skip to content

গ্লিটার্স এন্টারটেইনমেন্ট ও দাস বৈরাগী ফিল্মসের যৌথ উদ্যোগে অন্য ধরনের গল্প নিয়ে
“দ্বীপান্তর”……।

গোপাল দেবনাথ : কলকাতা, ৬ মার্চ, ২০২১। গত বছর থেকে শুরু হওয়া করোনা অতিমারীর কারণে দীর্ঘদিন শহরের কোথাও সেই অর্থে সাংবাদিক সন্মেলন অনুষ্ঠিত হয়নি। এই শহরে স্বল্প দৈর্ঘ্যের ফিল্ম বা তথ্য চিত্রের ছোট আকারে সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন হলেও বহুদিন পর কলকাতা প্রেস ক্লাবে একটি অন্য ধরনের গল্প নিয়ে নিজাম হাশমির প্রযোজনায় এবং পলাশ বৈরাগী র পরিচালনায় ‘দ্বীপান্তর’ নামে সিনেমাটি সাধারণ দর্শকদের ভালো লাগবে বলে আশা প্রকাশ করছেন এই সিনেমার যুক্ত সকলে। আর তা ছাড়া দ্বীপান্তর নামের মধ্যেই রহস্য ও রোমাঞ্চ লুকিয়ে আছে! এই সিনেমায় বহু নতুন মুখ যেমন সুযোগ পেয়েছে এবং সেই সাথে পরিচিত অভিনেতা ও অভিনেত্রীদের নিয়ে একদম অন্যধরণের সিনেমার দুটি গান এবং সিনেমার ট্রেলার দেখা গেল ওই দিনের সাংবাদিক সম্মেলনে। এবার আসা যাক সিনেমার কাহিনীর প্রসঙ্গে, কোরোনাগ্লিটার্স এন্টারটেইনমেন্ট ও দাস বৈরাগী ফিল্মসের যৌথ উদ্যোগের ছবি – “দ্বীপান্তর”।


কাহিনী – কলেজের পিকনিক এ ঘুরতে যাওয়াই ছিল তাদের শেষ যাওয়া। কলেজ পড়ুয়া মনোজ ও আলিয়া লঞ্চ থেকে নদী তে পড়ে যায়। ফরেস্ট অফিসাররা অনেক চেষ্টা করেও তাদের খুঁজে পায় না। গ্রামের মানুষ কেউ বলেছেন হয় ওদের কুমিরে না হয় বাঘ এ খেয়েছে। আবার অনেকে বলেছেন ওরা কোনো দ্বীপ এ হয়তো আছে। ছোটো থেকে বড় হয়ে ওঠা আরিয়ান প্রশ্ন করে তার ঠাকুমা কে, তার বাবা ও মা কোথায়। শেষ পর্যন্ত বাবার কলেজের প্রফেসর জানায়, কি ভাবে তাকে উদ্ধার করেছে এক নির্জন দ্বীপ থেকে। সেই দ্বীপ এ তার বাবা থেকে গেছে।


দ্বীপ এ থাকা অসহায় দরিদ্র ভাষা না জানা মানুষ গুলোই এখন তার পরিবার। ভাষা না জানা পরিবারদের সে কথা বলতে শিখিয়েছে। এই সিনেমার প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন রাজেশ শর্মা, বিশ্বজিৎ চক্রবর্তী, সান্ত্বনা বসু, রঞ্জন ভট্টাচার্য, সৌমেন দাস, মনোজ, আলিয়া, আরিয়ান প্রমুখ।

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.