Press "Enter" to skip to content

ওয়েলসের প্রথম সিনেমাই ছিল ‘সিটিজেন কেইন’—- যার সহলেখক, প্রযোজক, পরিচালক এবং প্রধান অভিনেতা সবই তিনি নিজে…….।

জন্মদিনে স্মরণঃ জর্জ অরসন ওয়েলস

বাবলু ভট্টাচার্য : একজন দক্ষ অভিনেতা হিসেবে অরসন ওয়েলস নিজেকে প্রতিষ্ঠা করতে পারতেন। শুধু তা না হয়ে বিশ্বমানসে নিজের প্রতিভার স্বাক্ষর রেখে গেলেন পরিচালনায়— প্রথমে একের পর এক সফল মঞ্চায়নে, চমকপ্রদ রেডিও অনুষ্ঠানে এবং অনন্য কয়েকটি সিনেমায়।

মোহ, পরিচিতি, স্মৃতি এবং বিশ্বাসঘাতকতা— অরসন ওয়েলসের ছবিগুলিতে এই থিমগুলি বারবার ফিরে এসেছে।

ওয়েলসের প্রথম সিনেমাই ছিল ‘সিটিজেন কেইন’—- যার সহলেখক, প্রযোজক, পরিচালক এবং প্রধান অভিনেতা সবই তিনি নিজে। সিনেমায় তার চরিত্রের নাম ছিল চার্লস ফস্টার কেইন। প্রথম সিনেমাই সর্বকালের সেরা সিনেমা হিসেবে স্বীকৃত হলেও ওয়েলস জীবনের প্রায় পুরোটা সময়ই চলচ্চিত্র স্টুডিওতে একজন বহিরাগত ছিলেন।

জীবনে পূর্ণদৈর্ঘ্য সিনেমা নির্মাণ করেছেন মাত্র ১৩টি। স্টুডিওর বিরুদ্ধে শৈল্পিক স্বাধীনতার জন্য আন্দোলন করে খুব বেশি সফলতা পাননি কারণ তার অধিকাংশ সিনেমাই স্টুডিওতে অনেক সম্পাদনার শিকার হয়েছে এবং কিছু আবার কখনোই প্রেক্ষাগৃহের মুখ দেখতে পায়নি।

তার অনন্য পরিচালনার পদ্ধতির মধ্যে ছিল লেয়ারভিত্তিক ও অরৈখিক গড়ন, আলোকসজ্জার খুব উদ্ভাবনী ব্যবহার, ক্যামেরার প্রথাবিরুদ্ধ অ্যাংগেল, বেতার থেকে ধার করা শব্দ সংযোগ, ডিপ ফোকাস শট এবং লং টেক।

তাঁকে সৃজনশীলতার প্রবাদপুরুষ এবং সিনেমার ইতিহাসে সেরা ওটার হিসেবে বিবেচনা করা হয়। ‘সিটিজেন কেইন’-এর পর করা তার অন্যান্য বহুল প্রশংসিত সিনেমার মধ্যে রয়েছে ‘দ্য ম্যাগনিফিসেন্ট অ্যাম্বারসনস’, ‘টাচ অফ ইভিল’ ইত্যাদি।

২০০২ সালে ব্রিটিশ ফিল্ম ইনস্টিটিউট চলচ্চিত্র সমালোচক ও পরিচালকদের মতামতের ভিত্তিতে সর্বকালের সেরা চলচ্চিত্রকারদের তালিকা তৈরি করে যেখানে অরসন ওয়েলসকে দেয়া হয় প্রথম স্থান। এছাড়া আরও অনেক সমালোচকদের জরিপ ও তালিকায় তাকে সর্বকালের সেরা চলচ্চিত্রকার হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়েছে।

সিনেমায় অভিনেতা হিসেবেও তিনি বিশেষ নাম কুড়িয়েছিলেন। অনেক সিনেমার মুখ্য চরিত্রে নিজেই অভিনয় করতেন। তার গলার মন্দ্রস্বরটি সবার বেশ পরিচিত ছিল। আমেরিকান ফিল্ম ইনস্টিটিউট সর্বকালের সেরা মার্কিন অভিনেতাদের তালিকায় তাকে ১৬তম অবস্থানে রেখেছে।

এছাড়া মঞ্চে শেক্সপিয়ারীয় অভিনেতা হিসেবে তার খ্যাতি ছিল, পাশাপাশি আবার জাদুকর হিসেবেও পরিচিত ছিলেন। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের বছরগুলোতে ভ্যারাইটি শো দলের সাথে ঘুরে ঘুরে বিভিন্ন স্থানে জাদু দেখিয়ে বেড়াতেন।

জর্জ অরসন ওয়েলস ১৯১৫ সালের আজকের দিনে (৬ মে) যুক্তরাষ্ট্রে জন্মগ্রহণ করেন।

More from GeneralMore posts in General »

Be First to Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.