২০বছরে পা দিল বিশ্ব কচ্ছপ দিবস৷ সারাবিশ্বে প্রায় ৩০০ প্রজাতির কচ্ছপ রয়েছে……..

————–বিশ্ব কচ্ছপ দিবস আজ————

বাবলু ভট্টাচার্য: ঢাকা, ২০বছরে পা দিল বিশ্ব কচ্ছপ দিবস৷ বিভিন্ন দেশে কচ্ছপ সংরক্ষণের জন্য দিনটি উদযাপন করছে স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ও বিজ্ঞানীরা৷ ২০০০ সালে আমেরিকান ‘টরটয়েজ রেসকিউ’ নামক একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা ২৩ মে বিশ্ব কচ্ছপ দিবস পালনে উদ্যোগী হয়েছিল৷ সেই থেকেই দিনটি পালিত হচ্ছে৷ দুনিয়ার সব থেকে প্রাচীন জীব হিসেবে পরিচিত কচ্ছপদের সম্পর্কে জনমানসে সচেতনতা বাড়িয়ে তুলতে দিনটির গুরুত্ব রয়েছে৷ জানিয়েছেন বিজ্ঞানীরা৷ পরিবেশের ভারসাম্য ধরে রাখতে কচ্ছপকে বাঁচিয়ে রাখা অতি প্রয়োজনীয়৷ বিভিন্ন রিপোর্টে উঠে এসেছে, সমুদ্র তীরবর্তী দেশগুলিতে কচ্ছপের সংরক্ষণ হলেও নিরীহ জীবটি কিন্তু শিকারের অন্যতম লক্ষ্যবস্তু হিসেবে পরিচিত৷ কচ্ছপ জলে স্থলে উভয়স্থানেই বাস করে।

বিশ্বে প্রায় ৩০০ প্রজাতির কচ্ছপ রয়েছে৷ কিছু প্রজাতি বিলুপ্ত হয়েছে৷ কচ্ছপ ধংসের কারণ হিসেবে উঠে এসেছে সমুদ্র সৈকতের ধারে নগরায়ন৷ উন্নয়নের নামে অনেক দেশে কচ্ছপের বিচরণের স্থান ধ্বংস করা হচ্ছে। ডিম পাড়ার জন্য সংরক্ষিত স্থানে পর্যটকদের আনাগোনাও কচ্ছপ সংকটের একটি বড় কারণ। চিন্তিত বিজ্ঞানীরা৷ কচ্ছপ সংরক্ষণের জন্য গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নিল সংযুক্ত আরব আমিরশাহী৷ পারস্য এবং ওমান উপসাগরের তীরবর্তী দেশটিতে সবুজ কচ্ছপকে বাঁচানোর জন্য গবেষণা প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে৷ উদ্যোক্তা এমিরেটস ওয়াইল্ড লাইফ সোসাইটি-ওয়ার্ল্ড ওয়াইল্ড লাইফ ফেডারেশন (EWS-WWF)৷

সবুজ কচ্ছপের মতো প্রাণীদের জীবন নিয়ে গবেষণা প্রকৃতি ও মানুষের ভারসাম্যের বিষয়ে নতুন কোনও তথ্য দেবে৷ এমনই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা৷

Leave a Reply

Your e-mail address will not be published. Required fields are marked *